• শিরোনাম

    বগুড়া ও সুনামগঞ্জে বজ্রপাতে চারজনের মৃত্যু

    সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি | ০১ মে ২০১৮

    বগুড়া ও সুনামগঞ্জে বজ্রপাতে চারজনের মৃত্যু

    জমিতে ধান কাটার সময় বজ্রপাতে মা-ছেলেসহ বগুড়ার সোনাতলা ও সুনামগঞ্জে জামালগঞ্জে আজ মঙ্গলবার সকালে চারজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে বজ্রপাতে তিন দিনে মৃত ব্যক্তির সংখ্যা দাঁড়াল ৩৬। গতকাল সোমবার নারায়ণগঞ্জে চারজনসহ নয়টি জেলায় বজ্রপাতে ১৫ জনের প্রাণহানি হয়। তাদের নয়জনই কৃষক। গত রোববার বজ্রপাতে ১০ জেলায় ১৭ জনের মৃত্যু হয়।

    বগুড়ায় নিহত মা-ছেলে হলো সোনাতলা উপজেলার সীমান্তবর্তী গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলার পূর্ব কামারপাড়ার আবদুস সালামের স্ত্রী বিলকিস বেগম (৪০) ও তার ছেলে স্কুলপড়ুয়া সোহেল রানা (১৫)। আর সুনামগঞ্জে নিহত দুই কৃষক হলো জামালগঞ্জ উপজেলার খুজারগাঁও গ্রামের কমলাকান্ত তালুকদার (৬০) ও সদর উপজেলার মোল্লাপাড়া ইউনিয়নের মোল্লাপাড়া গ্রামের আবদুর রশিদ (৪৫)।

    সুনামগঞ্জ: জামালগঞ্জের খুজারগাঁও গ্রামের কমলাকান্ত তালুকদার সকালে গ্রামের পাশের হাওরে অন্যদের সঙ্গে ধান কাটতে গিয়েছিলেন। সঙ্গে তার দুই ছেলেও ছিল। দুপুর ১২টার দিকে বজ্রপাতে ঘটনাস্থলেই কমলাকান্ত তালুকদার মারা যান। এ সময়  তার দুই ছেলে প্রিন্স তালুকদার (২০) ও সৈকত তালুকদার (১৫) এবং এই গ্রামের জ্ঞান রঞ্জন তালুকদার (৪৫) আহত হন। আহত ব্যক্তিদের মধ্যে প্রিন্স তালুকদার ও সৈকত তালুকদারকে গুরুতর অবস্থায় সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। জ্ঞান তালুকদারকে ভর্তি করা হয়েছে জামালগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। আহত সৈকত তালুকদার নবম শ্রেণির ছাত্র।

    নিহত ব্যক্তির সৎকার ও আহত ব্যক্তিদের চিকিৎসার জন্য জামালগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শামিম আল ইমরান তাৎক্ষণিক ১০ হাজার টাকা সহায়তা দিয়েছেন। অন্যদিকে, একই সময় বজ্রপাতে মারা যান সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার মোল্লাপাড়া গ্রামের আবদুর রশিদ। তিনি গ্রামের পাশের দেখার হাওরে ধান কাটতে গিয়েছিলেন।

    বগুড়া: সকালে সোনাতলা উপজেলার মধুপর ইউনিয়নের শালিখা উত্তরপাড়া জমিতে ধান কাটতে গিয়েছিল সোহেল রানা। পরে সকালে তার জন্য খাবার নিয়ে যান তার মা বিলকিস। এ সময় বৃষ্টি শুরু হলে জমির পাশেই অন্যান্য শ্রমিকের সঙ্গে একটি শ্যালোমেশিনের ঘরে আশ্রয় নেন তারা। একপর্যায়ে সেখানে বজ্রপাত হলে ওই মা, ছেল এবং গোলজার রহমান (৬০) নামের এক ব্যক্তি আহত হন। পরে তাদের উদ্ধার করে সোনাতলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মা বিলকিস বেগম ও ছেলে সোহেলকে মৃত ঘোষণা করেন।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    বে-রসিক ইউএনও!

    ১২ মার্চ ২০১৭

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে daynightbd.com