• শিরোনাম

    রাজধানীতে পুলিশের সোর্সকে গুলি করে হত্যা

    নিজস্ব প্রতিবেদক | ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

    রাজধানীতে পুলিশের সোর্সকে গুলি করে হত্যা

    রাজধানীর বাড্ডায় ফিল্মি স্টাইলে গুলি করে পুলিশের এক সোর্সকে হত্যা করেছে এক মাদক ব্যবসায়ী। নিহতের নাম আবুল বাশার বাদশা (৩২)। আজ শনিবার দুপুরে মেরুল বাড্ডার মাছ বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। অস্ত্র ও গুলিসহ মাদক ব্যবসায়ী নুরু ওরফে নুরাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। স্থানীয়রা বলছেন, বাদশাকে প্রকাশ্যে দিবালোকে ফিল্মি স্টাইলে গুলি করে পালাচ্ছিল সন্ত্রাসী নুরা। পরে স্থানীয়রা ধাওয়া করে ওই সন্ত্রাসীকে ধরে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দেয়।

    পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, বাদশা মেরুল বাড্ডার আনন্দনগর ১৭নং রোডে বাবা-মা ও স্ত্রীকে নিয়ে থাকতেন। সে শরীয়তপুরের ডামুড্ডার মোস্তফা ফকিরের ছেলে। আজ দুপুরের দিকে ঘটনা ঘটলেও সন্ধ্যা ৭টার দিকে স্ত্রী শিউলি আক্তার ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে গিয়ে বাদশার লাশ শনাক্ত করেন।

    শিউলি জানান, তারা বছর খানেক ধরে বাড্ডায় থাকেন। এর আগে টঙ্গি থাকতেন। সেখানে থাকাকালীন তার স্বামী বাদশা মাদক মামলায় এক বছর জেল খাটে। সেখান থেকে বাড্ডায় আসার পর বাদশা মৌচাকের একটি শাড়ীর দোকানে চাকরি নেয়। পাশপাশি বাড্ডা থানা পুলিশের সোর্স হিসেবে কাজ করত। গার্মেন্টসে চাকরি করেন জানিয়ে শিউলি বলেন, কে বা কারা বাদশাকে খুন করেছে তা তিনি নিশ্চিত নয়।

    খবর পেয়ে তিনি গার্মেন্টস থেকে সরাসরি হাসপাতালে গিয়ে স্বামীর লাশ শনাক্ত করেন। মা (শ্বাশুরি) বলেছে, সকালে বাদশার বন্ধুরা তাকে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে যায়। মর্গে গুলি বর্ষণকারী নুরু’র বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, নুরুকে তিনি চিনেন। সে মাদক ব্যবসায়ী। বেশ কয়েক দিন সে বাদশাকে মাদক ব্যবসা করতে বলে। কিন্তু এতে বাদশা রাজি হচ্ছিল না। সে কারণে নুরু বাদশাকে হত্যা করতে পারে।

    তবে বাড্ডা থানার ওসি কাজী ওয়াজেদ আলী জানান, বাদশা নামে তাদের থানায় কোন সোর্স ছিল না। নুরু’র বিরুদ্ধে কয়েকটি মামলা রয়েছে জানালেও সেগুলো কিসের মামলা তা তাৎক্ষণাৎ নিশ্চিত করতে পারেননি তিনি। তবে ঘটনার পর ওই স্থান থেকে একটি রিভলবার ও ৬ রাউন্ড গুলিসহ নুরুকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে বলে জানান ওসি।

    পুলিশ, হাসপাতাল ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, চিহ্নিত সন্ত্রাসী নুরা ওই যুবককে গুলি করেছে। নুরার বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় ৪০/৪২টি মামলা রয়েছে। ওই যুবককে গুলি করে পালানোর সময় নুরাকে স্থানীয়রা বাধা দেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে নুরা দুই রাউন্ড গুলি ছোড়ে। তবে ভাগ্যক্রমে সে গুলি কারো লাগেনি। বাদশা নুরার সহযোগি হতে পারে। আর্থিক লেনদেন বা পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এ ঘটনা ঘটতে পারে।

    প্রত্যক্ষদর্শী ইখতিয়ারসহ কয়েকজন জানান, নুরা মেরুল বাড্ডার মাছ বাজারে টয়লেটের পাশে অবস্থান নেন। সেখান থেকে বাদশাকে লক্ষ্য করে গুলি করার সময় এক শিশু দেখে চিৎকার করতে থাকেন। স্থানীয়রা বিষয়টি টের পেয়ে নুরুকে ধাওয়া করে। নুরু তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি নুরুর। তাকে ধরে গণপিটুনি দিয়ে বাড্ডা থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়। আর আহত বাদশাকে উদ্ধার করে ঢামেক হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সন্ধ্যায় কর্তব্যরত চিকিৎসক বাদশাকে মৃত ঘোষণা করেন।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে daynightbd.com