• শিরোনাম

    ট্রেন থেকে উদ্ধার যুবকের পরিচয় মিলেছে

    রাজধানীতে রিকশা চালককে হত্যা

    নিজস্ব প্রতিবেদক | ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

    রাজধানীতে রিকশা চালককে হত্যা

    রাজধানীর বাড্ডার বড়ট্যাগ নামক এলাকার একটি খালি প্লট থেকে খোকন ফকির (৫০) নামে এক অটোরিকশা চালকের রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল সকাল ৮টার দিকে লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) মর্গে পাঠানো হয়। এদিকে, গত ২৪ ফেব্রুয়ারি বিমানবন্দর রেলস্টেশনে ট্রেনের ছাদ থেকে অজ্ঞাত হিসেবে উদ্ধারকৃত লাশের পরিচয় মিলেছে। পুলিশ ঘটনাটিকে দুর্ঘটনা বললেও ময়নাতদন্তকারী চিকিৎসক এটিকে হত্যাকান্ড বলছেন।

    বাড্ডা থানার এসআই অনয় চন্দ্র পাল জানান, বাড্ডার বড়ট্যাগ এলাকা থেকে আজ সোমবার সকালে ওই রিকশা চালকের লাশটি উদ্ধার করা হয়। তার কপালে কোপের এবং বাম চোখের উপর থেতলানো ছিল। পকেটে থাকা মোবাইলে তার স্ত্রী-সন্তানের নম্বর পাই। পরে তাদের বিষয়টি জানালে তারা এসে লাশ শনাক্ত করেন। জানা গেছে, নিহত খোকনের গ্রামের বাড়ি জামালপুরের মেলান্দহ উপজেলার পশ্চিম বুরংসা গ্রামে। স্ত্রী নূরজাহান বেগম এবং দুই মেয়ে ও এক ছেলে নিয়ে বাড্ডা কৃষি ব্যাংক রোডের ১৮১০ নম্বর বাসায় থাকতেন।

    নিহতের জামাই সুমন জানান, রবিবার রাতে তার শ্বশুর রিকশা নিয়ে বের হয়ে আর বাসায় ফিরেননি। আজ সকাল ৮টার দিকে অন্য রিকশা চালকের মাধ্যমে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে তার মৃতদেহ শনাক্ত করেন। এ সময় অটোরিকশাটি পাওয়া যায়নি। সুমনের অভিযোগ, নিহতের বড় মেয়ে রিনা। তার স্বামী মিজান। জুয়া খেলা ও নেশা করার কারণে ৩/৪ মাস আগে মিজানের সঙ্গে রিনার বিচ্ছেদ হয়। এ নিয়ে প্রায়ই মিজানের সঙ্গে তার শ্বশুরের ঝগড়া লাগতো। তাদের অভিযোগ, মিজানই তার শ্বশুরকে হত্যা করেছে।

    বাড্ডা থানার ওসি কাজী ওয়াজেদ আলী জানান, পরিবারের অভিযোগ ও ছিনতাই ঘটনা- দু’টিকে প্রাধান্য দিয়ে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ঘটনায় জড়িতদের শনাক্ত করে আটকের জন্য ইতোমধ্যে পুলিশ কাজ শুরু করেছে।

    এদিকে, ২৪ ফেব্রুয়ারি রাতে বিমানবন্দর রেলস্টেশনে ট্রেনের ছাদ থেকে অজ্ঞাত হিসেবে উদ্ধারকৃত লাশের পরিচয় মিলেছে। তার নাম শাকিব খান (১৭)। সে নরসিংদী জেলার পলাশ উপজেলার ফুলবাড়িয়া গ্রামের সফর উদ্দিনের ছেলে। ঢাকা ‘শেরেবাংলা নগর কৃষি প্রশিক্ষণ ইন্সটিটিউটের’ ডিপ্লোমা ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী ছিল। আজ সকালে নিহতের খালু নুর মোহাম্মদ কাজী ঢামেক মর্গে এসে তার লাশের পরিচয় সনাক্ত ও এসব তথ্য জানান।

    নুর মোহাম্মদ কাজি জানান, গত ২৪ ফেব্রুয়ারি নরসিংদীর ঘোড়াশাল রেলস্টেশন থেকে কর্নফুলি এক্সপ্রেস ট্রেনে শাকিবকে তার বাবা উঠিয়ে দেন। এরপর থেকে তার সাথে যোগাযোগের চেষ্ট্রা করেও সম্ভব হয়নি। আজ সকালে খবর পেয়ে গ্রামের বাড়ি থেকে ঢামেক মর্গে এসে শাকিবের লাশ শনাক্ত করেন তারা।

    এর আগে, ২৪ ফেব্রুয়ারি রাত পৌনে ৯টার রাজধানীর বিমানবন্দর রেলস্টেশনে ট্রেনের ছাদ থেকে অজ্ঞাত হিসেবে তার লাশ উদ্ধার করে ঢাকা রেলওয়ে থানা পুলিশ। ঢাকা রেলওয়ে থানার ওসি ইয়াছিন ফারুক জানান, শাকিবের শরীরে আঘাতের চিহ্ন দেখে ধারণা করা হচ্ছে- ট্রেনের ছাদে উঠার সময় কোন এ্যাংগেলের সাথে আঘাত লাগেছে। এতে তার মৃত্যু হয়েছে।

    অন্য কোন ঘটনা আছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তার মাথায়, বুকেসহ শরীরের কয়েকটি আঘাতের চিহ্ন ছিলো। তবে আজ দুপুরে লাশের ময়নাতদন্ত শেষে ঢামেক ফরেনসিক বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. সোহেল মাহমুদ সাংবাদিকদের জানান, নিহতের পিঠে, পেটে ও মাথায়সহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে ৭-৮টি ছুরিকাঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। এই চিহ্নতেই মনে হচ্ছে তাকে হত্যা করা হয়েছে।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে daynightbd.com