• শিরোনাম

    ১০০ কেন্দ্রের ফল বাতিল চান মঞ্জু

    নিজস্ব প্রতিবেদক | ১৬ মে ২০১৮

    ১০০ কেন্দ্রের ফল বাতিল চান মঞ্জু

    সেসব কেন্দ্রের ভোট বাতিল করে যে ফলাফল ঘোষণা করা হয়েছে, সেটা বাতিল করতে হবে। এরপর সেখানে পুনরায় নির্বাচন দিতে হবে। কে ডি ঘোষ রোডে খুলনা মহানগর বিএনপি কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সামনে এসে মঞ্জু যখন এই দাবি জানান, ততক্ষণে তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী বিএনপির তালুকদার আবদুল খালেকের শিবিরে জয়োল্লাস শুরু হয়ে গেছে। সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত খুলনা নগরীর ৩১ ওয়ার্ডে ভোট গ্রহণ করা হয়। ২৮৯ কেন্দ্রের মধ্যে তিনটি কেন্দ্রে অনিয়মের কারণে ভোট স্থগিত হয়েছে।

    নির্বাচন কমিশন বলেছে, বিচ্ছিন্ন দুই-একটি ঘটনা ছাড়া উৎসবমুখ পরিবেশে ভোট গ্রহণ হয়েছে। বিএনপি যেসব অভিযোগ করেছে, তা সুনির্দিষ্ট নয়। বিএনপির অভিযোগ ‘হাস্যকর’ বলে উড়িয়ে দিয়েছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। অন্যদিকে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর একে ‘প্রহসনের ভোট’ আখ্যায়িত করে নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠনের দাবি তুলেছেন। বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক মঞ্জু বলেন,খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচন একটি কালিমালিপ্ত নির্বাচন। ভোটকেন্দ্র দখল, ব্যালট পেপারে সিল মেরে বাক্স ভর্তি করা, আমাদের পোলিং এজেন্টদের ঢুকতে না দেওয়া, গত রাত থেকে বাড়িতে হামলা করে একটি ভয়ার্ত পরিবেশ সৃষ্টি  করা হয়েছে।

    এর মাধ্যমে একটি অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বপ্নকে চুরমার করে দিয়ে বর্তমান সরকার এবং নির্বাচন কমিশন একটি কালো অধ্যায়ের সূচনা করল। তিনি বলেন,খুলনাবাসী এই ফলাফল প্রত্যাশা করেনি। তারা উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট দিতে চেয়েছে। সেই স্বপ্ন ধুলিসাৎ করে দিয়ে গভীর রাত থেকেই ভোট ডাকাতির মহড়া শুরু হয়েছে। দিনব্যাপী ভোট ডাকাতির যে চিত্র খুলনাবাসী দেখেছে, সেই নির্বাচন অগ্রহণযোগ্য।

    এ ধরনের ‘ভোট ডাকাতির নির্বাচন’ বাংলাদেশের গণতন্ত্রকে ‘আরও সঙ্কটে ফেলবে’ বলে মন্তব্য করেন সাবেক সংসদ সদস্য মঞ্জু।তিনি বলেন,আমি আমার পূর্বের বক্তব্যে বলেছিলাম, এই নির্বাচন ভাল না হলে, আগামী জাতীয় নির্বাচন অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়বে। সারাদিন যে ভয়াবহ চিত্র আমরা দেখেছি, তাতে মনে হচ্ছে নির্বাচন নামক এই বিষয়টি মানুষের কাছে স্বপ্নই থেকে যাবে। দেশের মানুষ তার ভোট দিতে পারবে না, তার ভোটটি দিয়ে যাবে সরকারি দলের লোকেরা। আর জাতি সেটা দেখবে।

    ধানের শীষের প্রার্থী বলেন, আমি এই নির্বাচনে খুশি হতে পারি নাই, এই নির্বাচন আমি গ্রহণ করতে পারলাম না। এবং এই ভোটের মাধ্যমে বাংলাদেশে রাজনৈতিক সঙ্কট বাড়বে, সেটা আমাদের জন্য আরও শঙ্কার কারণ। বুধবার সকাল ১০টায় দলীয় কার্যালয়ে মঞ্জু সংবাদ সম্মেলন করে আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়া জানাবেন বলে জানান খুলনা মহানগর বিএনপির তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক এহতেশামুল হক শাওন। খুলনা মহানগর বিএনপির সভাপতি মঞ্জু এবারই প্রথম মেয়র নির্বাচনে অংশ নিলেন।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে daynightbd.com