• শিরোনাম

    শিশু অধিকার লঙ্ঘন: অভিযুক্তদের তালিকায় ইসরাইল

    ডে নাইট ডেস্ক | শনিবার, ০৮ জুন ২০২৪

    শিশু অধিকার লঙ্ঘন: অভিযুক্তদের তালিকায় ইসরাইল

    বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে শিশুদের বিরুদ্ধে সহিংসতায় দায়ীদের তালিকায় ইসরাইলি সশস্ত্র বাহিনীকে যুক্ত করেছেন জাতিসংঘ মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একটি কূটনৈতিক সূত্র জানিয়েছে, হামাস ও ফিলিস্তিনি ইসলামিক জিহাদকেও এই তালিকাভুক্ত করা হবে। তবে মহাসচিবের এই সিদ্ধান্তকে ‘লজ্জাজনক’ বলে নিন্দা জানিয়েছেন জাতিসংঘে ইসরাইলের রাষ্ট্রদূত গিলাদ এরদান। খবর বিবিসি, দ্য গার্ডিয়ান ও আলজাজিরার।

    গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্যের বরাতে জাতিসংঘ জানায়, ৮ মাস ধরে চলা যুদ্ধে হামাস-শাসিত এই ভূখণ্ডে কমপক্ষে ৭ হাজার ৭৯৭ শিশু নিহত হয়েছে। তবে গাজার সরকারি সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, সব মিলিয়ে প্রায় সাড়ে ১৫ হাজার শিশু নিহত হয়েছে। অন্যদিকে ইসরাইলের ন্যাশনাল কাউন্সিল ফর দ্য চাইল্ডের মতে, ৭ অক্টোবর ইসরাইলে হামাসের হামলায় ৩৮ শিশু নিহত হয়েছে এবং জিম্মি হওয়া ২৫০ জনের মধ্যে ৪২ জন শিশু।

    শিশু ও সশস্ত্র সংঘাত নিয়ে গুতেরেসের ১৪ জুন জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে যে প্রতিবেদন জমা দেওয়ার কথা রয়েছে, তাতে এই বৈশ্বিক তালিকা অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। তালিকাটিতে ছয় ধরনের কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে শিশু অধিকার লঙ্ঘনের কথা বলা হয়েছে। এগুলো হলো-হত্যা, পঙ্গুত্ব, যৌন সহিংসতা, অপহরণ, শিশুশ্রমিক নিয়োগ ও ব্যবহার, ত্রাণ সরবরাহে বাধা এবং স্কুল ও হাসপাতালে হামলা। প্রতিবেদনটি তৈরি করেছেন গুতেরেসের শিশু ও সশস্ত্র সংঘাত বিষয়ক বিশেষ প্রতিনিধি ভার্জিনিয়া গাম্বা। প্রতিবেদনে অভিযুক্তদের তালিকা যুক্ত করার লক্ষ্য হলো, শিশুদের সুরক্ষা ব্যবস্থা বাস্তবায়ন।

    যারা শিশুদের সুরক্ষার জন্য ব্যবস্থা নিয়েছে এবং যারা ব্যবস্থা নেয়নি-এই দুই ভাগে তালিকাটি বিভক্ত। ইসরাইলি রাষ্ট্রদূত গিলাদ এরদান বলেছেন, যারা শিশুদের সুরক্ষায় পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেয়নি, সেই তালিকায় ইসরাইলকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। তবে ইসরাইল, হামাস বা ফিলিস্তিনি ইসলামিক জিহাদের বিরুদ্ধে ঠিক কী ধরনের অভিযোগ রয়েছে তা এখনও পরিষ্কার না।

    জাতিসংঘের মুখপাত্র স্টিফেন দুজারিক বলেছেন, মহাসচিব গুতেরেসের চিফ অব স্টাফ শুক্রবার ইসরাইলের দূত এরদানকে নতুন তালিকাভুক্ত দেশগুলোর বিষয়টি ফোন করে জানান। পরে এরদান সোশ্যাল মিডিয়ায় এক ভিডিও বার্তায় তার প্রতিক্রিয়া জানান। তিনি বলেন, মহাসচিবের এই সিদ্ধান্তে আমি অত্যন্ত লজ্জিত ও মর্মাহত। ইসরাইলের সেনাবাহিনী বিশ্বের সবচেয়ে নৈতিক সেনাবাহিনী, তাই এই অনৈতিক সিদ্ধান্ত কেবল সন্ত্রাসীদের সহায়তা করবে এবং হামাসকে উৎসাহিত করবে।

    দুজারিক ভিডিওটির আংশিক প্রকাশকে ‘অগ্রহণযোগ্য’ বলেছেন। তিনি বলেছেন, সত্যিই জাতিসংঘে আমার ২৪ বছরের অভিজ্ঞতায় এমন কিছু কখনো দেখিনি।

    ইসরাইলের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইসরাইল কাটজ বলেছেন, এই সিদ্ধান্ত জাতিসংঘের সঙ্গে ইসরাইলের সম্পর্কের ওপর প্রভাব ফেলবে। জাতিসংঘের সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেছেন ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুও। এক বিবৃতিতে তিনি বলেছেন, হামাসের সমর্থনকারীদের সঙ্গে যোগ দিয়ে জাতিসংঘ নিজেদের ইতিহাসে একটি কালো তালিকায় যুক্ত করেছে।

    শিশু ও সশস্ত্র সংঘাত বিষয়ক জাতিসংঘের বিশেষ দূত ২০১৪ সালে গাজায় সংঘটিত যুদ্ধের সময় ইসরাইল ও হামাসকে আইন লঙ্ঘনের তালিকায় যুক্ত করার সুপারিশ করেন। ইউক্রেনে শিশুদের হত্যা ও পঙ্গু করা, স্কুল ও হাসপাতালে হামলা এবং শিশুদের মানবঢাল হিসেবে ব্যবহারের অভিযোগে গত বছর তালিকায় যুক্ত করা হয় রাশিয়ার সশস্ত্র বাহিনীকে।

    ৪৬ বছর বয়সি ফ্রেডরিকসেন ২০১৯ সালে মধ্য-বামপন্থি সোশ্যাল ডেমোক্র্যাটসের নেতা হিসেবে প্রধানমন্ত্রী হয়েছিলেন। ডেনমার্কের ইতিহাসে তিনিই সর্বকনিষ্ঠ প্রধানমন্ত্রী।

    Facebook Comments Box

    বাংলাদেশ সময়: ৮:৩৯ অপরাহ্ণ | শনিবার, ০৮ জুন ২০২৪

    daynightbd.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    মৃতের সংখ্যা ২৩ হাজার ছাড়াল

    ১০ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

    আর্কাইভ

    সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০