• শিরোনাম

    বাস সংকট নিরসনের দাবিতে অনশনে কুবি শিক্ষার্থী, আশ্বাসে ভঙ্গ

    শিক্ষার্থীদের ‘অমানুষের বাচ্চা’ বললেন সহকারী প্রক্টর

    কুবি প্রতিনিধি | ১২ মার্চ ২০১৯

    শিক্ষার্থীদের ‘অমানুষের বাচ্চা’ বললেন সহকারী প্রক্টর

    কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) শিক্ষার্থীদের বহনকারী বাস সংকট দূর করার দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয়টির আইন বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী রিফাত আদনান আমরণ অনশনের ডাক দিলে পরে বিশ্ববিদ্যালয় পরিবহন কমিটির দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষকদের অনুরোধে তা তুলে নেয় এবং মঙ্গলবার সবাইকে নিয়ে বসে আলোচনা করে এ সংকট সমাধান করা হবে বলে আশস্ত করা হয়। এদিকে শিক্ষার্থীরা রিফাত আদনানের অনশনের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করলে সহকারী প্রক্টর শুভ ব্রত সাহা শিক্ষার্থীদের ‘অমানুষের বাচ্চা’ বলে গালি দিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

    সোমবার সকাল সাড়ে ১১ টায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভস্কর্যের পাদদেশে মুখে কালো কাপড় বেঁধে অনশন শুরু করেন তিনি। এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা তার সাথে একমত পোষণ করে কর্মসূচীতে অংশগ্রহন করে। শিক্ষার্থীরা একপর্যায়ে বিশ্ববিদ্যালয়র প্রধান ফটক আটকিয়ে রেখে শহরগামী দুপুর দুইটার বাস আটকিয়ে রেখে বিক্ষোভ করে। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ও পরিবহন কমিটির আশ্বাসে রিফাত আদনান বিকাল সাড়ে তিনটার দিকে অনশন তুলে নেয় এবং এর সমাধান ২/১ দিনের মধ্যে না করা হলে শিক্ষার্থীরা আন্দোলনের ডাক দিবেন বলে হুশিয়ারি দেওয়া হয়।

    অনশন সম্পর্কে জানতে চাইলে রিফাতসহ আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা জানান, আমাদের শিক্ষার্থীদের দীর্ঘদিনের দাবি ছিল বাস সংকট নিরসন করা, কিন্তু প্রশাসন বার বার সমাধানের আশ্বাস দেয়ার পরও দাবি পূরণ করছে না। প্রশাসনের এমন উদাসীনতা ও শিক্ষার্থীদের দাবি আদায়ে আমরা আর বসে থাকতে পারি না। আমরা আলোচনায় সন্তুষ্ট না হলে আবারো আন্দোলনে নেমে যাবো।

    এদিকে শিক্ষার্থীদের অনশন ভাঙ্গানো ও শিক্ষার্থীদের বুঝানোর সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর শুভ ব্রত সাহা শিক্ষার্থীদের ‘অমানুষের বাচ্চা’ বলে গালি দিয়েছেন বলে অভিযোগ করছেন শিক্ষার্থীরা। এতে শিক্ষর্থীরা আরও প্রতিবাদী হয়ে ওঠে। পরবর্তীতে তিনি শিক্ষার্থীদের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করেন।

    শিক্ষার্থীদের একটি যৌক্তিক আন্দোলনের মধ্যে কিভাবে তাদের গালি দিলেন এই প্রশ্নের জবাবে শুভ ব্রত সাহা বলেন,‘আমি ভিসি স্যারের অসুস্থতার কথা বুঝাতে গিয়ে তাদের ‘মানুষের বাচ্চা না’ বলে ফেলি। এর জন্য আমি সবার কাছে ক্ষমা চেয়েছি।’

    জানা যায়, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের পরিবহনের জন্য বিআরটিসি থেকে ভাড়া করা ১০টি বাস ব্যবহার করা হয়। এ ভাড়া করা বাসগুলো ফিটনেসবিহীন ও প্রয়োজনের তুলনায় বাস কম হওয়ায় শিক্ষার্থীরা বাস পাল্টানো ও নতুন বাস বৃদ্ধির দাবি জানিয়ে আসছিলো। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন থেকে নতুন বাস বৃদ্ধির কথা বারবার বলা হলেও কোনো কার্যকর পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে না।

    এর আগেও বিভিন্ন সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীসহ পথচারীদের দুর্ঘটনায় আহত হতে হয়েছে। অনশনকারী শিক্ষার্থী নিজেও গত ১৪ ফেব্রুয়ারি এবং এর আগে একই বিভাগের শিহাব নামের এক শিক্ষার্থী বাস দুর্ঘটনায় মারাত্মক আহত হয়।

    এসব সমস্যা সমাধানের বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ড. মো. আবু তাহের বলেন, আমরা বিআরটিসি চেয়ারম্যানের সাথে কয়েকবার বৈঠক করেছি। নতুন বাস আসলেই আমাদের পরিবহনে যুক্ত হবে। আর মঙ্গলবার শিক্ষার্থীদের নিয়ে বসে আমরা তাদের দাবিগুলোর বিষয়ে শুনবো এবং তা সমাধানে চেষ্টা করবো।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    কানাডায় স্থায়ী বসবাসের সুযোগ

    ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৭

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩
    ১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
    ২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
    ২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে daynightbd.com