• শিরোনাম

    রাজধানীর দুই সিটিতে ২৪ পশুর হাট, চলছে প্রস্তুতি

    নিজস্ব প্রতিবেদক | ০১ আগস্ট ২০১৯

    রাজধানীর দুই সিটিতে ২৪ পশুর হাট, চলছে প্রস্তুতি

    রাজধানীতে কোরবানির পশু বেচাকেনার জন্য এবার ২ সিটি করপোরেশন এলাকায় ২৪টি হাট বসানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে। এর মধ্যে গাবতলীর স্থায়ী পশুর হাটসহ ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) ১০টি এবং দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) ১৪টি। নিয়ম অনুযায়ী আগামী ৭ আগস্ট থেকে এসব হাটে পশু বেচাকেনা শুরু হবে, চলবে ঈদের আগের দিন পর্যন্ত। আর হাট প্রস্তুত করতে ৫ ও ৬ আগস্ট ইজারাদারদের সময় দেওয়া হলেও এরই মধ্যে তারা কাজ শুরু করে দিয়েছেন। নগরীর কয়েকটি হাট ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।

    ২ সিটি করপোরেশনের সম্পত্তি বিভাগ থেকে জানা যায়, উত্তর সিটির স্থায়ী গাবতলীর হাট ছাড়া ৯টি হাটের সর্বোচ্চ দর ১৩ কোটি ৪১ লাখ ৯৩ হাজার ৭৮৬ টাকা। আর দক্ষিণ সিটির ১৪টি হাটের সর্বোচ্চ দর ৮ কোটি ৮৭ লাখ ৫২ হাজার টাকা। সব মিলিয়ে ২৩টি হাট ইজারা দেওয়া হয়েছে ২২ কোটি ২৯ লাখ ৪৬ হাজার ৬২৭ টাকায়। ডিএনসিসি এলাকার হাটগুলো হলো উত্তরা ১৫ নম্বর সেক্টরের ১ ও ২ নম্বর ব্রিজের পশ্চিমের ফাঁকা জায়গা; ভাটারা (সাঈদ নগর) পশুর হাট; ঢাকা পলিটেকনিক

    ইনিস্টিটিউটের খেলার মাঠ; মোহাম্মদপুর বুদ্ধিজীবী সড়কসংলগ্ন (বছিলা) পুলিশলাইনসের খালি জায়গা; মিরপুর সেকশন-৬, ওয়ার্ড-৬ (ইস্টার্ন হাউজিং)-এর খালি জায়গা; মিরপুর ডিওএইচএস সংলগ্ন উত্তর পাশের সেতু প্রপার্টি ও সংলগ্ন খালি জায়গা; বাড্ডার ইস্টার্ন হাউজিং (আফতাবনগর) ব্লক-ই সেকশন-৩-এর খালি জায়গা; কাওলা-শিয়ালডাঙ্গা সংলগ্ন খালি জায়গা ও ভাষানটেক রাস্তার নির্মাণাধীন অব্যহৃত ও পরিত্যক্ত অংশ এবং পাশের খালি জায়গা।

    তবে এবার ডিএনসিসির অধীন ৩০০ ফুট এলাকার হাটটি বসছে না। এটি ইজারার জন্য দরপত্র আহ্বান করা হলেও পরে ভূমিসংক্রান্ত জটিলতার কারণে তা বাতিল করা হয়। ডিএসসিসি এলাকার ১৪টি হাট হলো উত্তর শাহজাহানপুর খিলগাঁও রেলগেট বাজারের মৈত্রী সংঘের মাঠসংলগ্ন আশপাশের খালি জায়গা, ঝিগাতলা-হাজারীবাগসংলগ্ন আশেপাশের খালি জায়গা, লালবাগের রহমতগঞ্জ খেলার মাঠসংলগ্ন আশেপাশের খালি জায়গা, কামরাঙ্গীরচর ইসলাম চেয়ারম্যানের বাড়ির মোড় থেকে দক্ষিণ দিকে বুড়িগঙ্গা নদীর বাঁধসংলগ্ন আশপাশের খালি জায়গা, শ্যামপুর বালুর মাঠসংলগ্ন আশপাশের খালি জায়গা, মেরাদিয়া

    বাজারসংলগ্ন আশপাশের খালি জায়গা, ৩২ নম্বর ওয়ার্ডের সামসাবাদ মাঠসংলগ্ন আশপাশ এলাকার খালি জায়গা, লিটল ফ্রেন্ডস ক্লাবসংলগ্ন গোপীবাগ বালুর মাঠ ও কমলাপুর স্টেডিয়ামসংলগ্ন বিশ্বরোডের আশপাশের খালি জায়গা, শনির আখড়া ও দনিয়া মাঠসংলগ্ন আশপাশের খালি জায়গা, ধূপখোলা মাঠসংলগ্ন আশপাশের খালি জায়গা, ৪১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউয়ারটেক মাঠসংলগ্ন আশপাশের খালি জায়গা, দাওকান্ডি ইন্দুলিয়া ভাগাপুর নগর (আফতাব নগর ইস্টার্ন হাউজিং মেরাদিয়া মৌজার সেকশন-১ ও ২) লোহারপুলের পূর্ব অংশ এবং খোলা মাঠসংলগ্ন আশেপাশের খালি জায়গা ও আমুলিয়া মডেল টাউনের আশপাশের খালি জায়গা।

    বুধবার (৩১ জুলাই) সকালে মেরাদিয়া হাটে গিয়ে দেখা যায়, এরই মধ্যে ইজারাদাররা হাটের প্রস্তুতি প্রায় শেষ করে ফেলেছেন। সারি সারি বাঁশ আর খুঁটি দিয়ে পশু বাঁধার ব্যবস্থা করা হয়েছে। তবে এতে কোরবানির কোনও পশু দেখা দেয়ানি। ইজারাদার মো. শাহ আলম জানান, তারা হাট সাজানোর কাজ করছেন। তবে জনসাধারণের সমস্যা হতে পারে, সে বিবেচনায় সড়কের পাশে এখনও বাঁশ-খুঁটি দিচ্ছেস না। হাটের প্রচার-প্রচারণা শুরু করেছেন।

    একই অবস্থা দেখা গেছে আফতাব নগর কোরবানি পশুর হাটের। এটি যৌথভাবে পরিচালনা করছে ২ সিটি করপোরেশন। এরই মধ্যে হাটের প্রধান গেট তৈরিসহ ভেতরের কাজ শুরু হয়েছে। ডিএনসিসির সম্পত্তি কর্মকর্তার অতিরিক্ত দায়িত্বে থাকা আইন কর্মকর্তা নাজমুল ইসলাম শামীম বলেন, ‘হাটের কিছু শর্ত রয়েছে। ইজারাদাররা সেই শর্ত অনুযায়ী ব্যবস্থাপনা করার কথা। তবে মেয়র সিদ্ধান্ত না দেওয়া পর্যন্ত আমি গরুর হাট বিষয়ে কিছু বলতে পারছি না। জানতে চাইলে দক্ষিণ সিটির সম্পত্তি কর্মকর্তা মো. রাসেল সাবরিন বলেন, ‘আমাদের ১৪টি হাট চূড়ান্ত করা হয়েছে। কখন থেকে হাট প্রস্তুত করা যাবে আর কখন থেকে হাট বসানো যাবে, সেটি ইজারার শর্তে বলে দেওয়া হয়েছে।’ কেউ শর্ত ভঙ্গ করলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে হুঁশিয়ারি দেন তিনি।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩
    ১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
    ২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
    ২৮২৯৩০৩১  
  • ফেসবুকে daynightbd.com