• শিরোনাম

    বিয়ে করতে চাওয়ায় স্ত্রীর পাহারায় ছেলেদের ছুরিকাঘাতে বাবা খুন

    নিজস্ব প্রতিবেদক | ১৩ অক্টোবর ২০২০

    বিয়ে করতে চাওয়ায় স্ত্রীর পাহারায় ছেলেদের ছুরিকাঘাতে বাবা খুন

    রাজধানীর হাজারীবাগ বসিলায় ছুরিকাঘাতে লাল মিয়া (৪৫) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছে। আজ মঙ্গলবার দুপুর ২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। স্বজনরা বলছেন, পারিবারিক কলহের জেরে স্ত্রী আরজুদা বেগমের পাহারায় লাল মিয়াকে হত্যা করেছে তার সন্তানরা। পুলিশ বলছে, নতুন ফ্লাট কিনে নতুন আরেকটি বিয়ে করতে চেয়েছিলেন লাল মিয়া। কয়েক জায়গায় পাত্রী খুঁজতেও বলেছিলেন। আর এতেই ক্ষুব্ধ হয়ে স্ত্রীর সহযোগীতায় তাকে গলায় ফাঁস ও ছুরিকাঘাতে হত্যা করে সন্তানরা।

    নিহতের ছোট ভাই মহর আলী জানান, হাজারীবাগ দক্ষিন বসিলা ব্রিজের পাশে লাল মিয়ার ৩ তলা বাড়ি। ২য় তলায় থাকতেন লাল মিয়া আর ৩য় তলায় থাকতেন তিন ছেলে ও ও সাবেক স্ত্রী আরজুদা বেগম। গত ৭/৮ মাস আগে পারিবারিক কলোহের কারণে স্ত্রী আরজুদা বেগমকে তালাক দেয় লাল মিয়া। ফলে ৩ ছেলে জহিরুল ইসলাম, সাজ্জাদুল ও মিলনসহ তাদের মা আরজুদা বেগমের সঙ্গে লাল মিয়ার বনিবনা ছিলোনা। প্রায় সময়ই ঝগড়াঝাঁটি চলতো।

    আজ দুপুরে তিনি (মহর আলী) বাড়ির পাশেই ছিলেন। লাল মিয়ার বাসা থেকে চিৎকারের শব্দ পেয়ে তিনি ওই বাসায় ঢুকে দেখেন এক ছেলে লাল মিয়ার গলায় গামছা পেচিয়ে ফাঁস দিয়ে রেখেছে আর আরেক ছেলে তার বুকে ছুরিকাঘাত করছে। এ সময় স্ত্রী দরজায় দাড়িয়ে পাহারা দিচ্ছিল। তখন তিনি লাল মিয়াকে তাদের কাছ থেকে উদ্ধার করে প্রথমে শিকদার মেডিকেলে নিয়ে যান। সেখান থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

    হাজারীবাগ থানার ওসি মোহা. সাজেদুর রহমান বলেন, বসিলা ব্রিজের পাশে নিজের ফ্লাটে স্ত্রী ও ৩ ছেলেকে নিয়ে থাকতেন লাল মিয়া। ওই বিল্ডিংয়ে তার অন্য ভাইদেরও ফ্লাট রয়েছে। সম্প্রতি তিনি তার বোনের কাছ থেকে একটি ফ্লাট কেনেন। ওই ফ্লাটে রাখার জন্য নতুন একটি বিয়ের করতে চেয়েছিলেন। এলাকার অনেককেই পাত্রী খুঁজতেও বলে ছিলেন। আর এতেই ÿুব্ধ হয়ে আরজুদা বেগমের সহযোগীতায় তাকে গলায় ফাঁস লাগিয়ে ও ছুরিকাঘাত করে হত্যা করে সন্তানরা। বিশেষ করে মেজো ছেলে সাজ্জাদ বেশি বেপরোয়া ছিলো। এ ঘটনায় একটি হত্যা মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। অভিযুক্তদের আটকের চেষ্টা চলছে বলেও জানান ওসি।

    বেকু মেশিন দিয়ে যুবককে হত্যার অভিযোগ 

    রাজধানীর খিলক্ষেতের মাস্তুল এলাকায় জনি মিয়া (২৫) নামের এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গত সোমবার দিবাগত রাতে মাস্তুল এলাকার দুলাল এন্টারপ্রাইজের বালুর গদির সামনে থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। স্বজনদের অভিযোগ, পূর্ব শত্রæতার জের ধরে বেকু মেশিন দিয়ে হত্যা করা হয়েছে জনি মিয়াকে। জানা গেছে, মাস্তুল বেলতলা এলাকায় পরিবার নিয়ে থাকতেন জনি। তার বাবার নাম জাইদুল ইসলাম। এক বছর আগে বিয়ে করেছিলেন তিনি।

    নিহত জনির নানা দীন ইসলাম জানান, ১৫ দিন ধরে ওই বালুর গদিতে ম্যানেজার হিসেবে কর্মরত ছিলেন জনি। তিনি প্রতি ট্রাকে টোকেন দিতেন। প্রতিদিনের মতো সোমবার সন্ধ্যায় জনি বাসা থেকে কাজে বেরিয়ে যান। রাত ৩টার দিকে একজন আমাদের বাসায় এসে জানান, জনি অ্যাক্সিডেন্ট করেছে। পরে সেখানে গিয়ে তাকে মৃত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায়।

    দীন ইসলামের অভিযোগ, পূর্বশত্রæতার জেরে বালু ব্যবসায়ী দুলাল, রাকিব, আব্বাস, আরিফ বেকু মেশিন দিয়ে তাকে ধাক্কা দিয়ে হত্যা করেছে। খিলক্ষেত থানার এসআই মো. আব্দুর রহিম জানান, রাতে বেকু দিয়ে ট্রাকে বালু তোলার সময় ডান চোখ ও কপালে আঘাত পেয়ে ঘটনাস্থলেই জনির মৃত্যু হয়। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহটি ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    ৩১  
  • ফেসবুকে daynightbd.com