• শিরোনাম

    ভারতীয় সন্ত্রাসী পরিচয়ে চাঁদা দাবিতে কিশোর আটক

    নিজস্ব প্রতিবেদক | ২৮ জানুয়ারি ২০২১

    ভারতীয় সন্ত্রাসী পরিচয়ে চাঁদা দাবিতে কিশোর আটক

    রাজধানী গুলশানের একজন ব্যবসায়ীর কাছে ২০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে এক কিশোর। টাকা না দিলে বোমা মেরে তার পরিবারের সদস্যদের উড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেয়। এমনকি ব্যবসায়ীর গাড়িতে বোমা সাদৃশ্য একটি বস্তুও রাখে। ওই কিশোরের এমন কর্মকান্ডের অভিযোগ পেয়ে তাকে গ্রেফতার করেছে ডিএমপির গোয়েন্দা গুলশান বিভাগের একটি টিম। বুধবার (২৭ জানুয়ারি) মুন্সীগঞ্জের লৌহজং থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত অপ্রাপ্তবয়স্ক হওয়ায় তার নাম ও পরিচয় প্রকাশ করেনি পুলিশ।

    আজ (২৮ জানুয়ারি) ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত কমিশনার (ডিবি) এ কে এম হাফিজ আক্তার বলেন, গ্রেফতারকৃত কিশোর হুমকি দেয়া ওই ব্যবসায়ীর গ্রামের বাড়ির কেয়ারটেকারের ছেলে। সে এসএসসি পরীক্ষায় অকৃতকার্য় হওয়ার পর একটি কাপড়ের দোকানে চার হাজার টাকা বেতনে সেলসম্যানের কাজ নেয়। কিন্তু অল্প সময়ে দ্রুত ধনী হওয়ার আশায় সেখান থেকে পালিয়ে আসে। পরিকল্পনা অনুযায়ী ধনী হওয়ার জন্য এই ব্যবসায়ীর পরিবারকে টার্গেট করে সে।

    এরপর ঘটনার দুই মাস আগ থেকেই সে ব্যবসায়ীর পরিবারকে ভয়ভীতি ও হুমকি দিয়ে চাঁদা আদায়ের পরিকল্পনা। সে হিন্দি সিনেমা, সিরিয়াল, ইউটিউব দেখে নকল বোমা বানানো এবং সন্ত্রাসী পরিচয়ে হুমকি ধামকি দেওয়ার কৌশল শেখে। হিন্দি সিনেমা দেখার কারণে হিন্দি ভাষায় কথা বলার দক্ষতা অর্জন করে। এরপর সে লাল স্কচটেপ, পাইপ, ইলেকট্রিক তার, পেন্সিল ব্যাটারি ও অন্যান্য উপকরণ দিয়ে বোমা সাদৃশ্য বস্তুটি তৈরি করে নিজের কাছে রাখে।

    পরে ওই ব্যবসায়ী তার প্রাইভেটকার নিয়ে ঢাকা থেকে লৌহজংয়ে তার এক আত্মীয়ের জানাজায় যোগদান করতে গেলে গ্রেফতারকৃত কিশোর সুযোগ বুঝে ব্যবসায়ীর প্রাইভেটকারের নিচে স্কচটেপ দিয়ে বোমা সাদৃশ্য বস্তুটি আটকে দেয়। এরপর গত ১১ জানুয়ারি রাত ৪টায় ‘ভারতীয় সন্ত্রাসী’ পরিচয় দিয়ে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ব্যবসায়ীর কাছে ২০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। টাকা না দিলে বোমা মেরে তার পরিবারের সদস্যদের উড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেয়।

    পর দিন বিকাল ৪টায় ওই ব্যবসায়ীর প্রাইভেটকারটি পার্কিং করা অবস্থায় গাড়ির ড্রাইভার গাড়ির নিচে বোমা সাদৃশ্য বস্তুর উপস্থিতি দেখতে পান। বিষয়টি বাড্ডা থানা পুলিশকে জানালে সিটিটিসির বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে বোমা সাদৃশ্য বস্তুটি অপসারণ এবং ধ্বংস করে। পরে বিশ্লেষণে দেখা যায়, বোমা সাদৃশ্য বস্তুটি একটি অকার্যকর বোমা ছিল। ব্যবসায়ীর অভিযোগে বাড্ডা থানায় একটি মামলা রুজু হয়। এই ঘটনাটির তদন্ত ও রহস্য উদঘাটনে তৎপর হয় ডিবি টিম। গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহ ও বিশ্লেষণ শেষে ওই ঘটনার মূল হোতাকে শনাক্ত করে।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২
    ১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
    ২০২১২২২৩২৪২৫২৬
    ২৭২৮  
  • ফেসবুকে daynightbd.com