• শিরোনাম

    ছিনতাকারীর টানে মায়ের কোল থেকে পড়ে শিশু মৃত্যু

    নিজস্ব প্রতিবেদক | ১৮ ডিসেম্বর ২০১৭

    ছিনতাকারীর টানে মায়ের কোল থেকে পড়ে শিশু মৃত্যু

    আড়াই বছরের অসুস্থ সন্তান আল-আমিনকে চিকিৎসা করাতে শরিয়তপুর থেকে ঢাকা এসেছিলেন শাহ আলম ও আকলিমা দম্পত্তি। আজ সোমবার ভোরে সদরঘাটে লঞ্চ থেকে নেমে যাত্রাবাড়ি যাচ্ছিলেন তারা। সুনশান রাস্তায় রিকশায় বসা মায়ের বুকে জড়িয়ে ছিল সুস্থ-সবল ছয় মাসের সন্তান আরাফাত। হঠাৎ করেই হায়েনার মত মা আকলিমার হাতে থাকা ব্যাগটি টান দিয়ে নিয়ে যায় ছিনতাইকারীরা।

    এক হাতে সন্তান আর আরেক হাতে ব্যাগ থাকায় আকলিমা বেগম ঝোঁক সামলেতে না পেরে রিকশা থেকে পড়ে যান। পড়ে যায় শিশু আরাফাতও। এতে তার নাক, মুখ থেঁতলে যায়। গুরুতর আহতে কেঁদে উঠে আরাফত। সাথে সাথে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল নিলে ভোর সাড়ে ৬টার দিকে চিকিৎসক শিশুটিকে মৃত ঘোষণা করেন।

    পুলিশ ও হাসপাতাল সূত্র জানিয়েছে, বড় ছেলে আলামিন অসুস্থ থাকায় দুই ছেলেকে নিয়ে আজ সকালে ঢাকায় আসেন শাহ আলম ও আকলিমা দম্পতি। গ্রামের বাড়ি শরীয়তপুর থেকে লঞ্চে এসে তারা নামেন সদরঘাটে। রিকশা নিয়ে শনির আখড়ায় বোনের বাসায় যাচ্ছিলেন। তাদের রিকশাটি যাত্রাবাড়ির ১৯/২ পাড় গেন্ডারিয়া এলাকায় পৌঁছালে ছিনতাইকারীরা আকলিমা হাতে থাকা ব্যাগ ধরে টান দিলে কোলে থাকা ছয় মাসের সন্তান আরাফাতসহ মাটিতে পড়ে দুর্ঘটনাটি ঘটে।

    নিহতের চাচা বিল্লাল হোসেন জানান, বড় ছেলে আল-আমিন দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ। তার বাতজ্বর হয়েছে বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছিল। তাই ঢাকায় চিকিৎসার জন্য রবিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে শরীয়তপুর থেকে শাহ আলম ও তার পরিবার লঞ্চে উঠে। সোমবার ভোরে শনি আখড়ায় আকলিমার বোন মাকসুদার বাসায় যাওয়ার সময় ছিনতাইকারীরা কবলে পড়ে। ছিনতাইকারীরা ব্যাগ ছিনিয়ে নেয়ার সময় আকলিমা ও তার সন্তান নিচে পড়ে পাশ দিয়ে যাওয়া একটি পিকআপ ভ্যানের সাথে ধাক্কায় খায়। তাকে উদ্ধার করে ঢামেক হাসপাতালে নিয়ে গেলে আরাফাতকে মৃত ঘোষণা করেন।

    যাত্রাবাড়ী থানার ওসি আনিসুর রহমান জানান, ঘটনাস্থলে আগ থেকেই একাধিক ছিনতাইকারী ওৎ পেতে ছিল বলে মনে হচ্ছে। তারা ছিনতাইকারীদের গ্রেফতারের চেষ্টা করছেন। এ ঘটনায় মামলাও প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। রাজধানীজুড়ে বেশ কয়েকটি সংঘবদ্ধ ছিনতাইকারী চক্র চলন্ত রিকশা বা বাসে যাত্রীদের ব্যাগ বা মোবাইল টান দিয়ে ছিনতাই করে আসছে।

    কিন্তু আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এ চক্রটিকে এখনো ধরতে পারছে না। ফলে ঝুঁকিতে সাধারণ মানুষ। কয়েক বছর আগেও ধানমন্ডি এলাকায় একজন রিকশাযাত্রী গৃহবধূর ব্যাগ ছিনতাইয়ের সময় তাকে কয়েকশ’ গজ টেনে হিঁচড়ে নিয়ে যায় গাড়িতে থাকা ছিনতাইকারীরা। এ ঘটনায় সারাদেশে ব্যাপক আলোড়ন তুলেছিল। এরপরও ছিনতাইকারীদের তৎপরতা ঠেকাতে বিশেষ কোনো ব্যবস্থা পরিলক্ষিত হয়নি।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    ৩১  
  • ফেসবুকে daynightbd.com