• শিরোনাম

    জেএমবির দুই সদস্য গ্রেফতার

    নিজস্ব প্রতিবেদক | ২৪ ডিসেম্বর ২০১৭

    জেএমবির দুই সদস্য গ্রেফতার

    নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জামাআ’তুল মুজাহিদীন বাংলাদেশের (জেএমবি) সারোয়ার-তামিম গ্রুপের দুই শীর্ষ পর্যায়ের সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। তারা হলেন- শায়েখ আরিফ হোসেন ও রমিজ উদ্দিন ভূঁইয়া ওরফে বাবু। গতকাল শনিবার রাতে রাজধানীর খিলগাঁও ও মুগদা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। তাদের কাছ থেকে চারটি জঙ্গীবাদী বই এবং ১২টি নোটশীট জব্দ করা হয়।

    র‌্যাব-১১ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল কামরুল হাসান জানান, গ্রেফতারকৃত দুইজনের বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি মামলা আছে। তাদের দীর্ঘদিন ধরে খোঁজা হচ্ছিল। আরিফ জেএমবির কেন্দ্রীয় দাওয়াত বিষয়ক শুরার সদস্য এবং ঢাকা মহানগরীর পূর্বাঞ্চলের দাওয়াতী আমীর। তার বাড়ি টাঙ্গাইলের দেলদুয়ারে। বাবু জেএমবির কেন্দ্রীয় দাওয়াত বিষয়ক শুরা সদস্য। তার বাড়ি ফেনীর ফুলগাজীতে।

    গত এপ্রিল মাস থেকে ২৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত র‌্যাব-১১ বেশ কয়েকটি সফল জঙ্গিবিরোধী অভিযান পরিচালনা করে। এসব অভিযানে বিভিন্ন জঙ্গি সংগঠনের শীর্ষ পর্যায়ের নেতাসহ ৬২ জনকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত জঙ্গিদের রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করে তাদের নেটওয়ার্ক এবং কার্যক্রমের অনেক তথ্য পাওয়া যায়। যেসব জঙ্গি সদস্য এখনও গ্রেফতার হয়নি তাদের আইনের আওতায় আনতে অব্যাহত অভিযান চলছে।

    র‌্যাব সুত্র জানায়, আরিফ ২০০১ সালে ঢাকা কলেজ থেকে বাংলা বিষয়ে এমএ পাশ করে। ২০০৪ সাল থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত সে রাজধানীর যাত্রাবাড়ী এলাকার একটি স্কুলে শিক্ষকতা করে। ২০০৬ সাল থেকে বংশালের একটি স্কুলে সহকারী শিক্ষক হিসেবে ইংরেজী বিভাগে চাকরি করে আসছে। ২০১২ সালের জানুয়ারি মাসে আরিফ তার এক নিকট আত্মীয়ের মাধ্যমে মোহাম্মদপুরের বছিলায় জসিমউদ্দিন রাহমানির মসজিদে যাতায়াত শুরু করে। একাধিকবার ব্যক্তিগতভাবে সাক্ষাতের মধ্য দিয়ে জসিম উদ্দিন রাহমানির অনুসারী হিসেবে নিজেকে আত্মপ্রকাশ করে। ২০১৪ সালের মাঝামাঝি সময়ে সে রাজধানীর নন্দীপাড়াস্থ কোরআন সুন্নাহ একাডেমী মসজিদের ইমাম ও খতিব হিসেবে যোগ দেয়।

    এ সময় থেকেই তার উগ্রবাদী বক্তব্য বিভিন্ন জঙ্গী সংগঠনের সদস্যদের আকৃষ্ঠ করতে থাকে। সে এ পর্যন্ত প্রায় ৪০০ জনকে জঙ্গিবাদে উদ্ধুদ্ধ করেছে। ২০১৫ সালের শেষ দিকে সে জেএমবিতে যোগদান করে। সে দাওয়াতী কাজের জন্য ঢাকা মহানগরীর বিভিন্ন এলাকা ছাড়াও রাজশাহী, বগুড়া, লালমনিরহাট, জামালপুর, চাঁদপুর ও বাগেরহাটসহ দেশের বিভিন্ন জেলা ভ্রমন করেছে। সিলেটের আতিয়া মহলে অভিযানের পর আরিফ, ইমরান আহমেদ, সাজিদ ওরফে সানজিদ, তাওহিদুল ইসলাম ওরফে জুয়ায়ের ওরফে জুনায়েদসহ সংগঠনের শীর্ষ স্থানীয় কয়েকজন মিলে জঙ্গি নেতা ইমরান আহমেদের বাসায় গোপন বৈঠকে মিলিত হয়।

    বাবু ২০০৯ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ইসলামিক স্ট্যাডিজ বিভাগ থেকে এমএ পাশ করে রাজধানীর একটি স্কুলে শিক্ষকতা শুরু করে। ২০১৬ সাল থেকে রাজধানীর মুগদা এলাকার একটি স্কুলে শিক্ষকতা করে আসছে। ২০০৯ সালে রমিজউদ্দিন তার নিকট আত্মীয় জনৈক লিটন এবং জনৈক মুনতাসির এর হাত ধরে জেএমবিতে যোগদান করে।

    পাশপাাশি দাওয়াতী কাজ শুরু করে। ২০১০ সালে মুনতাসির গ্রেফতার হলে রমিজ উদ্দিন কিছুদিন আত্মগোপনে থাকে। ২০১২ সালে মুনতাসির জেল থেকে মুক্ত হওয়ার পর তারা একত্রে ফের জেএমবির কার্যক্রম শুরু করে। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর ক্রমাগত অভিযানের প্রেক্ষিতে ২০১৭ সালের মাঝামাঝি সময় থেকে সে তার বসবাসের স্থান একাধিকবার পরিবর্তন করে ছদ্মবেশে বিভিন্ন স্থানে বসবাস করে আসছিল।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    ৩১  
  • ফেসবুকে daynightbd.com