• শিরোনাম

    জঙ্গিবাদ ও সমকালীন বাংলাদেশ : একটি তথ্য ভান্ডার

    ডেনাইটবিডি ডেস্ক | ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

    জঙ্গিবাদ ও সমকালীন বাংলাদেশ : একটি তথ্য ভান্ডার

    বইটির প্রচ্ছদ বিষয়বস্তুর সাথে খুবই সামঞ্জস্যপূর্ণ। প্রচ্ছদে দেখা যাচ্ছে- কালো ‘ভি’ চিহ্ন প্রদর্শনকারী। তার নিচে সাদা ‘ভি’ চিহ্ন, ওই প্রদর্শনকারীর আঙুল ‘রক্তাক্ত’! প্রচ্ছদ দেখেই বুঝাযায় জঙ্গিবাদ তার কালো থাবা মেলেছে, হিংস্র কামড় দিয়েছে। গত চার দশক ধরে জঙ্গিবাদের ক্রমবর্ধমান শক্তি এবং সাম্প্রতিককালে উপর্যুপরি আক্রমণের প্রেক্ষাপটে কিছু প্রশ্ন বারবার ফিরে আসছে- বাংলাদেশে জঙ্গিবাদের কারণ কী? কারা রয়েছে জঙ্গিবাদে? অর্থায়নে কারা? কিভাবে চলছে জঙ্গি অপতৎপরতা? এসব প্রশ্নের উত্তর গত এক যুগের বেশী সময় ধরেই খোঁজার চেষ্টা করছেন গ্রন্থ রচয়িতা মুহাম্মদ সেলিম।

    salim-pp

    জঙ্গিবাদকে কার্যকরভাবে মোকাবেলা করতে হলে অবশ্যই এর প্রধান কারণগুলো চিহ্নিত করা এবং তার উৎসের দিকে তাকানো দরকার। জড়িতদের পরিচয় ও তাদের অপতৎপরতার কৌশলও জানা দরকার। এই প্রেক্ষিতে লেখকের প্রথম প্রকাশনা ‘জঙ্গিবাদ ও সমকালীন বাংলাদেশ’ মূলত একটি তথ্য ভান্ডার। এতে বাংলাদেশে জঙ্গিবাদের উত্থানের পর্যালোচনা করেছেন লেখক।

    গ্রন্থে মোট অধ্যায় রয়েছে পাঁচটি। জঙ্গিবাদ : পরিপ্রেক্ষিত বাংলাদেশ, জঙ্গি প্রশিক্ষণ ও সাক্ষাৎকার নামে তিনটি অধ্যায় রয়েছে। জঙ্গিবাদ বিষয়ে সংবাদপত্রে প্রকাশিত লেখকের প্রতিবেদনগুলো নিয়ে বাকি একটি অধ্যায় করা হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিভিন্ন অভিযানে জঙ্গি আস্তানা থেকে জব্দ হওয়া অপ্রকাশিত বেশকিছু ‘নথি’ তুলে ধরা হয়েছে শেষ অধ্যায়ে।

    বাংলাদেশের জঙ্গিবাদ যুগে প্রবেশ করার তথ্য আছে প্রথম অধ্যায়ে। দেড় শতাধিক জঙ্গি সংগঠন ও জঙ্গিবাদ সমর্থনকারী সংগঠনের নামও এতে উঠে এসেছে। উল্লেখযোগ্য জঙ্গি হামলার তথ্যও উল্লেখ আছে গ্রন্থে। মৌলবাদের অর্থনীতি নিয়েও বিস্তারিত তথ্য আছে প্রথম অধ্যায়ে। জঙ্গি প্রশিক্ষণ- নামের অধ্যায়টিতে জঙ্গি সংগঠনের উত্থান ও অপতৎপরতা তুলে ধরা হয়েছে।

    জঙ্গি আস্তানায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অভিযানে উদ্ধার হওয়া বেশকিছু ‘নথিপত্র’ দেখে জঙ্গিদের নানা কৌশলের চিত্র উপস্থাপন করেছেন লেখক। তৃতীয় অধ্যায়ে জঙ্গিবাদ বিষয়ে লেখকের প্রচুর প্রতিবেদন স্থান পেয়েছে। দীর্ঘ এক যুগের বেশি সময় ধরে গ্রন্থ রচয়িতা সংবাদকর্মী হিসেবে জঙ্গি সংশ্লিষ্ট যে প্রতিবেদনগুলো করেছেন তাই লিপিবদ্ধ করেছেন এখানে। এরমধ্যে বেশকিছু অনুসন্ধানী প্রতিবেদন দুর্দান্ত হয়েছে, পথ দেখিয়েছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকেও।

    ৫৫টি বই পড়িয়ে ‘মস্তিষ্ক ধোলাই’, ধরা পড়লে জিজ্ঞাসাবাদকারীকে বিভ্রান্ত করার কড়া প্রশিক্ষণ, অস্ত্র আসে মিয়ানমার থেকে, মাঠে এবিটি’র ১৫ সদস্যের প্রশিক্ষিত টিম, সীমান্তে নতুন জঙ্গি সংগঠন আকামুল মুজাহিদিন, আতঙ্ক বাড়াচ্ছে হরকাতুল ইয়াকিন, গহিন জঙ্গলে জঙ্গি প্রশিক্ষণ, ভয়াবহ নাশকতার ৪০ পরিকল্পনা- শিরোনামে প্রতিবেদনগুলো গুরুত্বপূর্ণ ছিল। জঙ্গি নেতা আবু আম্মার ও মুফতি আবুজার আজ্জামকে নিয়ে প্রতিবেদনও ছিল। শেষ অংশে জঙ্গিবাদ সংশ্লিষ্ট ‘নথিগুলো’ দেখলে-পড়লে বোঝা যায় গ্রন্থ প্রকাশের ভাবনা থেকেই এক যুগ ধরে এসব সংরক্ষণ করেছেন লেখক।

    salim-2

    প্রতিটি খবরের পেছনে একজন সাংবাদিকের কত ধৈর্য, শ্রম, সাহসিকতা ও চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হয় এর কিছুটা হলেও ধারণা মেলে ‘জঙ্গিবাদ ও সমকালীন বাংলাদেশ’ গ্রন্থে। জঙ্গিবাদের সমকালীন চিত্র তুলে ধরার প্রয়াস থেকে সমাজবিজ্ঞানী, ইসলামী চিন্তাবিদ, জঙ্গিবাদ বিরোধী আন্দোলনের নেতা, সমাজের বিশিষ্ট ব্যক্তি ও জঙ্গিদের সাক্ষাৎকারও গ্রন্থে স্থান দিয়েছেন লেখক।

    জঙ্গি অপতৎপরতা থেকে ফিরে আসতে সক্ষম হওয়া এক ব্যক্তির সাক্ষাতকার তুলে ধরা হয়েছে শেষ অধ্যায়ে; যিনি নিজের অতীত ও বর্তমান নিয়ে লেখককে দীর্ঘ সাক্ষাতকার দিয়েছিলেন। বাংলাদেশে জঙ্গিবাদ বিষয়ে জানা-শোনার পরিধি প্রসারিত করতে গ্রন্থটি অসামান্য ভূমিকা রাখবে নিঃসন্দেহে। গ্রন্থটি জঙ্গিবাদ গবেষণায় নতুন মাত্রা যোগ করবে।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    মা হওয়ার পথে বাধা রাতের ডিউটি!

    ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৭

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩
    ১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
    ২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
    ২৮২৯৩০৩১  
  • ফেসবুকে daynightbd.com